খবরের বিস্তারিত...

FB_IMG_1633182440815

ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ চট্টগ্রাম জেলার “প্রশিক্ষণ কর্মশালা ও কর্মী সম্মেলন” সম্পন্ন

আক্টো. 02, 2021 সাংগঠনিক খবর

জনমতের প্রতিফলনে বিঘ্নতার সৃষ্টি হওয়াতে দেশ দুর্নীতির আখড়ায় পরিণত হয়েছে। ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ চট্টগ্রাম জেলার কর্মী সম্মেলনে-আল্লামা ছৈয়দ বাহাদুর শাহ মোজাদ্দেদী ।

ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ এর কেন্দ্রীয় চেয়ারম্যান জাতীয় নেতা পীরে কামেল আল্লামা ছৈয়দ বাহাদুর শাহ মোজাদ্দেদী বলেছেন-দেশ এখন কঠিন এক ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে। গণতান্ত্রিক সমাজের মূল চালিকাশক্তি হচ্ছে নির্বাচন। নির্বাচনের মধ্য দিয়েই জনমতের প্রতিফলন ঘটে। অথচ নির্বাচন নিয়ে নির্বাচন কমিশন এর প্রহসনমূলক কর্মকাণ্ডে জনগণ ভোটকেন্দ্র বিমূখ হয়ে পড়ছে। তাই তিনি দেশের নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলসমূহের পরামর্শের ভিত্তিতে নির্বাচন কমিশন গঠনের ওপর গুরুত্বারোপ করেন। সমাজের পশ্চাৎপদ, অবহেলিত তথা আর্ত মানবতার কল্যাণসাধন রাজনীতীর মূল প্রতিপাদ্য হলেও ভিন্ন চেহারায় দৃশ্যমান বর্তমান রাজনীতি। এখন রাজনীতি একটি শ্রেণীর অভিলাষ চরিতার্থের উপাদানে পরিণত হয়েছে বলে মন্তব্য করে তিনি বলেন-দরিদ্ররা বরাবরই দরিদ্রই থেকে যাচ্ছে বরং কিছু মানুষ ক্রমাগত রাতারাতি আঙ্গুল ফুলে কলা গাছ হচ্ছে। ফলে ধনী-দরিদ্র বৈষম্য বৃদ্ধি পাচ্ছে প্রতিনিয়ত। বেকারত্ব নিরসনে কার্যকর কোন পদক্ষেপ নেই। নিত্য পণ্যের বাজারে কোন নিয়ন্ত্রণ নেই। রেমিট্যান্স প্রবাহ শ্লথ হয়ে পড়েছে। রপ্তানী আয় আশা ব্যাঞ্জক নয়। প্রতিটি সেক্টরে ঘুষ দুর্নীতি জ্যামিতিক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। জনমতের প্রতিফলনে বিঘ্নতার সৃষ্টি হওয়াতে দেশ দুর্নীতির আখড়ায় পরিণত হয়েছে বলে তিনি মন্তব্য করেন। এছাড়াও আল্লামা বাহাদুর শাহ মোজাদ্দেদী চট্টগ্রামের দূঃখ জলাবদ্ধতা নিরসনে এযাবত কোন কিনারা না হওয়াতে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। এক মাসের ব্যবধানে ড্রেনে পড়ে ২জন নিরীহ মানুষের মৃত্যুর ঘটনা সত্যিই অনাকাংখিত ও অনভিপ্রেত। যা সিটি কর্পোরেশন ব্যবস্থাপনার দুর্বল চিত্রেরই বহিঃপ্রকাশ। সিটি কর্পোরেশন এ দুটি মৃত্যুর দায় এড়াতে পারে না। তিনি অবিলম্বে চট্টগ্রাম নগরীর জলাবদ্ধতা নিরসন, শতবর্ষী কালুরঘাট সেতু পূণঃ নির্মাণ এবং যানজট নিরসনে হাটহাজারী ১১ মাইল থেকে মেডিকেল গেইট পর্যন্ত একটি ফ্লাইওভার নির্মাণে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট জোর দাবী জানান।
সংগঠনের মহাসচিব অধ্যক্ষ আল্লামা জয়নুল আবেদীন জুবাইর বলেছেন- সর্বত্র অন্যায়-অনিয়ম প্রাতিষ্ঠানিক রূপ পাওয়ায় সামাজিক সুস্থতা দৌড়ে পালিয়েছে।
রাষ্ট্র থেকে আত্নিক, নৈতিক ও উচ্চতম আদর্শের রাষ্ট্রচিন্তা নির্বাসিত হয়েছে। যে কারণে জাতীয় লক্ষ্যার্জন এর পথ হয়ে পড়েছে কণ্টকাকীর্ণ। এক্ষেত্রে ইসলামের কালজয়ী আদর্শের সফল বাস্তবায়নই এ অবস্থা থেকে উত্তরণ সম্ভব বলে তিনি মন্তব্য করেন। জাতীয় জীবনে একটি সুস্থ, সুন্দর ও মানবিক মূল্যবোধের সমাজ বিনির্মান তথা একবিংশ শতাব্দীর চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় একটি মেধাবী, দক্ষ ও আদর্শিক প্রজন্ম গঠনে অহর্নিশ কাজ আঞ্জাম দিয়ে যাচ্ছে ইসলামের মূলধারা আহলে সু্ন্নাত ওয়াল জামায়াত ও মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনাসমৃদ্ধ রাজনৈতিক সংগঠন ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ।
সভাপতি আলহাজ্ব এইচ এম মুজিবুল হক শাকুর বলেন- চট্টগ্রামের উন্নয়ন সংস্থাগুলোর পরস্পরিক সমন্বয়হীনতায় উন্নয়ন কর্মযজ্ঞ ত্বরান্বিত হচ্ছে না। গণদাবি উপেক্ষা করে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য ধ্বংসের মাধ্যমে সিআরবিতে হাসপাতাল নির্মাণ একইভাবে টাইগারপাস এর ঐতিহ্য ও নান্দনিকতা ধ্বংস করে এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ চট্টগ্রাম বিদ্বেষী ষড়যন্ত্র। তিনি রেলওয়ের পরিত্যক্ত সুবিধাজনক স্থানে হাসপাতাল নির্মানসহ লালখান বাজারের পরিবর্তে দেওয়ানহাট থেকে এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট জোর দাবী জানান।
ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ চট্টগ্রাম জেলার উদ্যোগ অদ্য ২ অক্টোবর ‘২১ শনিবার রিমা কনভেনশন হলে অনুষ্ঠিত প্রশিক্ষন কর্মশালা ও কর্মী সম্মেলনে বক্তারা উপরোক্ত মন্তব্য করেন। চট্টগ্রাম মহানগর ইসলামিক ফ্রন্টের সভাপতি আলহাজ্ব এইচ এম মুজিবুল হক শাকুর এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দলের চেয়ারম্যান জাতীয় নেতা পীরে কামেল হযরতুলহাজ্ব আল্লামা ছৈয়দ বাহাদুর শাহ মোজাদ্দেদী। প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মহাসচিব জাতীয় নেতা বরেণ্য আলেমেদ্বীন শায়খুল হাদিস অধ্যক্ষ আল্লামা জয়নুল আবেদীন জুবাইর। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- এড. আবু নাছের তালুকদার। পীরে তরিকত আল্লামা ছৈয়দ নাছেরুল হক চিশতী, অধ্যক্ষ আল্লামা এস এম ফরিদ উদ্দীন, আল্লামা কাজী জসিম উদ্দীন, এম সোলায়মান ফরিদ, স ম হামেদ হোসাইন, এস এম সিরাজ উদ্দিন তৈয়বী, পীরজাদা আল্লামা নাজমুল হক আখন্দ। মওলানা এ এম মঈনউদ্দীন চৌধুরী হলিম এর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সম্মেলনে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- অধ্যক্ষ আল্লামা কাজী আব্দুল হান্নান, অধ্যাপক ছৈয়দ হাফেজ আহমদ, অধ্যক্ষ মাওলানা ছৈয়দ জসিম উদ্দীন তৈয়বী, আল্লামা ছালেহ আহমদ আনছারী, অধ্যক্ষ আল্লামা জাকের আহমদ সিদ্দিকী, অধ্যক্ষ মাওলানা আবু ছালেহ, আব্দুর রহমান মান্না, এস এম আব্দুল করিম তারেক, অধ্যক্ষ মাওলানা নুরুল আমিন, স ম শহিদুল হক ফারুকী, মাওলানা রফিকুল ইসলাম নেজামী, এম মহিউল আলম চৌধুরী, এম ওয়াহেদ মুরাদ, লায়ন এমরান, মাওলানা মোজাম্মেল হোসাইন, শহিদুল্লাহ সাদা, এড. এমদাদুল হক পাটোয়ারী, ছৈয়দ মোহাম্মদ আসাদ উদ্দীন রিয়াদ শাহ, অধ্যাপক মোক্তার আহমদ, শাহাদত হোসেন রুবেল, কাজী আহসানুল আলম, কফিল উদ্দীন রানা, এস এম আবু ছাদেক ছিটু, আহমদ রেজা,খ ম জামাল উদ্দীন, ইসলামী ছাত্রসেনার কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ ফরিদ মজুমদার, এইচ এম মনির হোসাইন, ফরিদুল হক, কাওসারুল ইসলাম সোহেল, তৌহিদ মুরাদ সুমন প্রমূখ।

Comments

comments

Related Post