খবরের বিস্তারিত...

1537195149

ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ’র ১০০ আসনে নির্বাচনের প্রস্তুতি,মহাজোট থেকে চাইবে ২০ আসন

সেপ্টে. 18, 2018 সাংগঠনিক খবর

‘আসন্ন নির্বাচনকে কেন্দ্র করে মুক্তিযুদ্ধের নেতৃত্বদানকারী আওয়ামী লীগ এর নেতৃত্বে নির্বাচনী জোট গঠন করা হলে ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ মহাজোটে অন্তর্ভুক্ত হয়ে নির্বাচন করবে’।
–জাতীয় প্রেস ক্লাবে ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ এর সংবাদ সম্মেলনে আল্লামা সৈয়দ বাহাদুর শাহ।

ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ মহাজোট থেকে ২০টি আসন চাইবে। ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ চেয়ারম্যান আল্লামা সৈয়দ বাহাদুর শাহ মোজাদ্দেদী বলেছেন, অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও অংশগ্রহণমূলক রাজনৈতিক পরিবেশ সৃষ্টির জন্য সরকার, নির্বাচন কমিশন, রাজনৈতিক দলসমূহ ও সকল শ্রেণী পেশার মানুষের দায়িত্ব রয়েছে। সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতার কারণে নির্বাচন কমিশন আগামী জানুয়ারী’র প্রথমার্ধে জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠানে বাধ্য। অন্যদিকে সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচন আয়োজনে সরকারের গুরুদায়িত্ব থাকলেও সরকারের একার পক্ষে এ আয়োজন সম্ভব নয়। একারণে সকল নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করে নির্বাচন কমিশনকে পূর্ণ স্বাধীনতা দিয়ে কাজ করতে দিতে হবে। তিনি আজ ১৭ সেপ্টেম্বর সোমবার বিকাল ৩টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের ভি.আই.পি লাউঞ্জে আগামী জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে সকলের করণীয় বিষয়ে ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ’র রুপরেখা ও পরিকল্পনা ঘোষণা করে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সভাপতির বক্তব্যে একথা বলেন। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ মহাসচিব অধ্যক্ষ আল্লামা জয়নুল আবেদীন জুবাইর। সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব এম. সোলায়মান ফরিদ। সংবাদ সম্মেলনে বিগত সময়ে মহাজোটের শরিক দল হিসেবে জাতীয় রাজনৈতিক আন্দোলনে দলের অবস্থান ও ভূমিকা তুলে ধরে নেতৃবৃন্দ বলেন, একাত্তরের পরাজিত অপশক্তি ও গণবিচ্ছিন্ন দেশবিরোধী ষড়যন্ত্রকারীরা আবার মাথা চাড়া দিয়ে উঠেছে। এমতাবস্থায় মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতার চেতনায় ঐক্যবদ্ধ হয়ে ষড়যন্ত্রকারীদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে জাতীয় ঐক্য গড়ে তুলতে হবে। নির্বাচনী আচরণবিধি পরিপালন ও বাস্তবায়নে কোন পক্ষকেই বিন্দুমাত্র ছাড় না দিয়ে কমিশনকে তাদের সক্ষমতা ও স্বাধীনতার প্রমান দিতে হবে। স্বাধীনতার চেতনা সমুন্নত ও উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ অতীতের ন্যায় মহাজোটের সাথে জোটবদ্ধ হয়ে নির্বাচন করবে। এ লক্ষ্যে দলের পক্ষ থেকে জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে ২০টি আসন চাওয়া হয়েছে। অন্যথায় ১০০টি আসনে প্রার্থী দিয়ে প্রতিদ্বন্দিতা করতে ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ এর পূর্ণ প্রস্তুতি রয়েছে। একটি অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের পরিবেশ নিশ্চিত করতে ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ এই নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে। এতে দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ আবদুস সাত্তার মোজাদ্দেদী, যুগ্ম মহাসচিব স.ম. হামেদ হোসাইন, আল্লামা কাজী আনোয়ারুল ইসলাম খান, অধ্যাপক আ.মা.ম মুবিন, আল্লামা মোশাররফ হোসাইন হেলালী, আল্লামা খাজা আরিফুর রহমান তাহেরী, সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, আলহাজ¦ এইচ.এম মুজিবুল হক শুক্কুর, অর্থ সম্পাদক অ্যাডভোকেট এম শাহীদুল আলম রিজভী, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সহ-সম্পাদক আলহাজ¦ মঈনুদ্দীন চৌধুরী হালিম, পরিবেশ ও পর্যটন বিষয়ক সহ-সম্পাদক মহিউল আলম চৌধুরী, ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ নারায়নগঞ্জ জেলা সভাপতি অ্যাডভোকেট এ.এম.একরামুল হক, সাধারণ সম্পাদক আলহাজ ইকবাল সোবহান এপোলো, নারায়নগঞ্জ মহানগর সাধারণ সম্পাদক জমির হোসাইন, কুমিল্লা জেলা সভাপতি আলহাজ¦ আবু বাক্কার, ইসলামী ছাত্রসেনা সভাপতি মুহাম্মদ নাঈম উদ্দীন, ইসলামী ছাত্রসেনা সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ গোলাম হায়দার হাসিব প্রমুখ। নেতৃবৃন্দ সুষ্ঠু, অবাধ, নিরপেক্ষ ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন আয়োজনে দলের রুপরেখা দেয়ার লক্ষ্যে আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর রবিবার রমনাস্থ ইনস্টিটিউশন অব ইঞ্জিনিয়ার্স মিলনায়তনে এক বৃহত্তর কর্মী সম্মেলন এর ঘোষনা দেন।

Comments

comments

Related Post